দাদার মরদেহ দেখতে রওনা হয়ে নিজেই লাশ, পড়ুন বিস্তারিত !!

নেপাল থেকে দাদার মৃত্যু সংবাদ আসে শ্রেয়া ঝার কাছে। আর এরপর ছুটি নিয়ে সোমবার (১২ মার্চ) সকালে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সে নেপাল রওনা হন। কিন্তু ওই দিনই বাড়ি যাওয়ার পথে বিমান দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজের পঞ্চম বর্ষের ছাত্রী শ্রেয়া ঝা।

সোমবার (১২ মার্চ) দুপুরে নেপালের ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের সময় ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের বিএস-২১১ বিমান দুর্ঘটনায় নিহত হন তিনি।

শ্রেয়া ঝা নেপালের মাহোত্রারী সানফা-৩ এলাকার বাসিন্দা ছিলেন। তার বাবার নাম লাকসমান ঝা ও মায়ের নাম মাধুরী ঝা।

বুধবার (১৪ মার্চ) কুমুদিনী মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ জানায়, রোববার নেপাল থেকে শ্রেয়া ঝার দাদার মৃত্যু সংবাদ আসে। সংবাদ পেয়ে তিনি ছুটির আবেদন করেন।

ছুটি মঞ্জুর হলে ১২ মার্চ সকালে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সে নেপাল রওনা হন। দুপুরে নেপালের ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দুর্ঘটনায় তার মৃত্যু হয়।

কুমুদিনী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. এমএ হালিমের সঙ্গে কথা হলে আবেগাপ্লুত হয়ে বলেন, এ রকম মৃত্যু যেন আর কারো না হয়।

সূত্রঃ বিডি২৪লাইভ

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *